এ্যাট্রিয়াল সেপ্টাল ডিফেক্ট (এএসডি)

এ্যাট্রিয়াল সেপ্টাল ডিফেক্ট কি?

হৃদপিণ্ডের চারটি প্রকোষ্ঠ রয়েছে। উপরের দুটি অলিন্দ ও নিচের দুটি নিলয়। ডান অলিন্দ ও বাম অলিন্দ একটি দেয়াল দ্বারা পৃথক থাকে। যদি জন্মগত ভাবে শিশুর ডান ও বাম অলিন্দের মাঝের দেয়াল এ ছিদ্র থাকে তবে এই অবস্থা কে এ্যাট্রিয়াল সেপ্টাল ডিফেক্ট বা এএসডি বলা হয়।

এ্যাট্রিয়াল সেপ্টাল ডিফেক্ট আব ফলে হার্টের বাম অলিন্দের অক্সিজেন যুক্ত রক্ত নাম নিলয়ের মধ্য দিয়ে সমগ্র শরীরে সঞ্চারিত না হয়ে, ছিদ্রের মধ্য দিয়ে ডান অলিন্দে চলে আসে। এর ফলে ডান আলিন্দে রক্তচাপ বেড়ে যায় এবং এই চাপ ফুসফুসের রক্তনালীতে সংবহিত হয়। এই সম্পূর্ণ ঘটনাটি হার্টের মধ্যে অস্বাভাবিক শব্দ তৈরী করে। সেই সাথে ফুসফুসের অতিরিক্ত রক্তচাপ, হৃদপিণ্ডের মধ্যে অতিরিক্ত চাপ অলিন্দের মাংসপেশিকে অস্বাভাবিক ভাবে ফুলিয়ে তোলা সহ নানাবিধ সমস্যা সৃষ্টি করে।

এএসডির প্রকারভেদঃ

জায়গা অনুযায়ী-

  1. এএসডি সিকুয়েন্ডাম
  2. এএসডি প্রাইমাম
  3. সাইনাস ভেনোসাস এএসডি
  4. করোনারী সাইনাস এএসডি

আকৃতি অনুযায়ী-

  1. ছোট আকৃতির এএসডি (<৩মিমি)
  2. মাঝারী আকৃতির এএসডি (৩-৮মিমি)
  3. বড় আকৃতির এএসডি (>৮মিমি)

ছোট আকৃতির এএসডি সাধারণত ২ বছর বয়সের মধ্যেই স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় বন্ধ হয়ে যায়। মাঝারী আকৃতির এএসডি যা কিনা ৮মিমির চেয়ে কম, সেগুলো ও ৪ বছর বয়সের মধ্যে স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় ঠিক হয়ে যাবার সম্ভবনা থাকে। বড় আকৃতির এএসডি (>৮মিমি) সাধারণত নিজে থেকে বন্ধ হয় না।

রোগের লক্ষনসমূহঃ

  1. ঘন ঘন বুকে ইনফেকশন হওয়া
  2. শারীরীক শক্তি কমে আসা
  3. শিশুর বৃদ্ধি ঠিকমতো না হওয়া
  4. বুক ধড়ফড় করা এবং অনিয়মিত হার্টবিট

কখন ও কিভাবে চিকিৎসা করা হয়?

এ্যাট্রিয়াল সেপ্টাল ডিফেক্ট যন্ত্রের সাহায্যে বন্ধ করা হয়। কিন্ত এটা নির্ভর করে লক্ষনসমূহের প্রকাশকাল এবং ইকোকার্ডিওগ্রাফির রিপোর্ট এর উপর

ট্রিটমেন্টঃ

  1. ঔষধ এর মাধ্যমে চিকিৎসা দেয়া হয় ফুসফুসের রক্তচাপ নিয়ন্ত্রন এর জন্যে
  2. বিশেষ ডিভাইস/ বোতামের মাধ্যমে ছিদ্র বন্ধ করা যায় যখন ছিদ্রটি দুই প্রকোষ্ঠের মাঝের দেযালের মাঝামাঝি অবস্থান করে
  3. অপারেশন এর মাধ্যমে চিকিৎসাঃ অধিকতর জটিল এ্যাট্রিয়াল সেপ্টাল ডিফেক্ট অবশ্যই অপারেশনের মাধ্যমে চিকিৎসা করানো বাঞ্চনীয়